Advertisement
Hot Kello

bangla choti 2018 ভিবিন্ন ধরনের আকা বাঁকা জিনিস -bangla choti golpo

ভিবিন্ন সাইজের আকা বাঁকা জিনিস

ভিবিন্ন সাইজের আকা বাঁকা জিনিস

বন্ধুরা আমি পাজল। মিডিয়াতে এবং বন্ধু মহলে আমাকে সবাই প্লে-বয় হিসেবেই জানে। আমার কাজ হল টাকা দিয়ে কিংবা সস্তা প্রেম করে সুন্দরি মডেল কন্যা কিংবা স্কুল কলেজের সুন্দরী মেয়েদের ভুগ করা। গত কিছু দিন আগে এক গানে এক বিবাহিত সুন্দরি মেয়ে অচেনা জাফরের নাচা নাচি দেখে মাথা খারাপ হয়ে গেল।
এক এজেন্ট কে কল দিয়ে বললাম দেখুন এক রাতের জন্য যে করেই হউক অচেনা জাফর কে আমার ফ্লাটে পাঠিয়ে দিন । এজেন্ট হেসে বল্ল স্যার অচেনা জাফর সংসার করবে তাই এই কাজ ছেরে দিয়েছে গত সাত আট মাস আগেই। আমি রেগে বললাম আপনারা কি করেন এদের মত এত কড়া জিনিস কে কি করে সংসার করতে দেন বুজি না, তারা তারি ব্যবস্তা করুন তা না হলে অন্য এজেন্সি দিয়ে ব্যবস্তা করাব।আমার কথা সুনে এজেন্ট বল্ল পাজল স্যার আপনি চিন্তা করবেন না আমরা আপনার সাথে একটি বিজ্ঞাপনের সুটিং করার জন্য অচেনা জাফর কে চুক্তিব্দ করব তারপর জাগামত নিয়ে যা করার করবেন। আমি এজেন্টের কথা সুনে হাসিতে হাসিতে বলেই ফেল্লাম এসব সুন্দর সুন্দর বুদ্দির জন্যই আমি আপনার এজেন্সিতে ফ্রি কাজ করি। তারপর আমি বললাম তারাতারি করে বিজ্ঞপনের চুক্তি করে দিন ঠিক করে আমাকে জানান। এজেন্ট বল্ল ঠিক আছে পাজল স্যার, অতি সিগ্রই আমি আপনাকে জানিয়ে দিব। এর প্রায় পনের দিন পর এজেন্ট ফোনে কল করে বল্ল পাজল স্যার আগামী কাল সোম বার চলে আসুন আমাদের জজ্ঞল স্পটে আপনার জিনিসের সাথে বিজ্ঞাপনের জন্য। কথা সুনে লাফিয়ে বিছানা থেকে উঠে ধন মহারাজের উপর হাত দিয়ে বুলাতে বুলতে চলে গেলাম টয়লেটে। তারপর সোম বার সকাল বেলা রেডি হয়ে ইচ্ছে করে দেরি করে চলে গেলাম জজ্ঞল স্পটে গিয়ে দেখি সবাই বসে আছে আমার আশায়।
অচেনা জাফর আমার দিকে এগিয়ে এসে বল্ল পাজল ভাই আপনি সবসময় দেরি করে আসেন কেন? আমি অচেনা জাফরের গায়ে হাত দিয়ে বললাম এত টাঁকা খাবে কে বল। আমার কথা সুনে অচেনা জাফর বল্ল দেখুন পাজল ভাই আপনার টাকা আছে তাই দেরি করেছেন কিন্তু আমাদের কষ্ট দিলেন কেন? আমি দুখের অভিনয় করে বললাম এবারের মত ক্ষমা করে দাও সুন্দরি। আমার কথা সুনে অচেনা জাফর বল্ল পাজল ভাই আর সময় নষ্ট না করে চলুন তারাতারি গিয়ে কাজের কাজ করি । আমি হেসে বললাম আমি এখুনু সুটিং এর পোশাক পরিনি এস আমাকে একটু হেল্প কর প্লিস। অচেনা জাফর মুচকি হেসে বল্ল আপনি চেঙ্গিং রুমে গিয়ে সুটিং এর পোশাক পরেন তারপর এসে দেখছি ঠিক আছে কি না। এ কথা শুনার পর আমার ধন মহারাজ নিচ থেকে কয়েকটা স্যলুট দিল। তারপর আমি চেঙ্গিং রুমে গিয়ে ভিডিও ক্যমেরা সেট করে, সুটিং পোশাক পরে পেন্টের চেইন খুলা রেখেই অচেনা জাফরকে ডেকে বললাম সুন্দরি রমনি এসে দেখে জাও পোশাক পরা ঠিক আছে কি না। আমার কথা সুনে অচেনা জাফর মুচকি মুচকি হেসে চেঙ্গিং রুমের সামনে আসতেই আমি এক টানে রুমে নিয়ে দরজা বন্দ করে দিলাম। অচেনা জাফর আমার দিকে তাকিয়ে বল্ল পাজল ভাই একি করছেন দরজা বন্দ করলেন কেন? এউনিটের সবাই খারাপ মনে করবে। আমি হেসে বললাম চিন্তা করছ কেন এটা এই বিজ্ঞাপনের একটা নতুন অংশ। এ কথা শুনে অচেনা জাফর ঠোঁট বাকিয়ে হাসি দিল আর বলল পাজল ভাই কি যে বলেন। আমি বললাম তুমি আমার পাশে থাকলে অসম্ভব কে সম্ভব করা এক মিনিটের কাজ। এর পর অচেনা জাফর বলে ধুর… কি যে বলেন কিছুই বুজি না। আমি বললাম হেসে বললাম তোমার মায়াবি চেহারার এই অস্তির ফিগার বিশাল বিশাল দুধ কে না চায় এমন মেয়েকে নিজের কাছে টেনে ধরে রাখতে। ও একটু লজ্জা পেয়ে বলল “ ইশস আর বলেন না লজ্জা লাগে তো । আর বেশি কথা না বাড়িয়ে জাপটে ধরে ওর লাল লাল লিপস্টিক দেয়া ঠোটে চুমু খেতে লাগলাম। আর এক হাত দিয়ে ওর জামার ভিতর দিয়ে ওর এক দুধ ধরে টিপতে লাগলাম। আমার হাতের ছোঁয়ায় অচেনা জাফর কেঁপে উঠলো, একি করছেন পাজল ভাই এটা ঠিক নয়। আমি বললাম যা করছি তা তুমার আমার ভালর জন্যই করছি। অচেনা রেগে গিয়ে বল্ল আমি বিবাহিত। আমি হেসে দুই ধুদে দুই হাতে চাপতে চাপতে বললাম তাতে কি এ মিডিয়া জগতে জারা আসে তারা বিবাহিত আর অবিবাহিত একই কথা আর ভাব দেখাস না। আমার কথা সুনে পরে স্বাভাবিক হয়ে আমাকে পাগলের মত চুমু খেতে লাগলো আর আক হাত দিয়ে নিজের ভোদায় হাতাতে লাগলো। ৪/৫ মিনিট এভাবে চলল। তারপর বলল “ আমি আর পারছিনা পাজল ভাই প্লিজ একটা কিছু করার ব্যবস্থা করেন। আমার কাম জ্বালা মিটিয়ে দেন। আমি মুচকি হেসে বললাম কেন তুমার নতুন জামাই কি কাম জ্বালা মিটিয়ে দেয় নি। অচেনা জাফর রেগে মেগে বল্ল যেখানে বড় বড় ভিবিন্ন ধরনের আকা বাঁকা জিনিস খেয়ে অভ্যাস সেখানে কি আমার এক জনের এক দরনের জিনিস খেয়ে মজা পাওয়া যায়! আমিও তার কথা সুনে চেইন খুলে মহারাজ কে দেখিয়ে বললাম চিন্তা কর না এই আকা বাঁকা জিনিস কি চলবে আজ? আমার কথা সুনে আর ধন মহারাজ কে দেখে পাছা আমার দিকে মুখ করে রেখে নিজের আঙ্গুল মুখে নিয়ে চুষতে লাগলো। এর পর কাপড় চোপর খুলে আস্তে আস্তে আবার আমার দিকে মুখ করে ঘুরতে ঘুরেতে নিজের দুধ আস্তে আস্তে বের করে ফেলল । আহা কি সুন্দর দুধ দুটো। মনে হচ্ছে এখনই গিয়ে মুখে পুরে খেয়ে ফেলি। কিন্তু আমি অপেক্ষা করলাম দেখলাম ও নিজের হাত দিয়ে দুই পাশের দুধ ধরে চাপছে আর বুক নিজের দিকে ঝুকিয়ে আহহ আহহ শব্দ করছে। আর এক পাশের দুধ ধরে নিজের মুখের কাছে নিয়ে চেটে খেল । এর পর অচেনা জাফর আস্তে আস্তে আমার কাছে এসে আমার উপরে ঝুকে আমার কপাল গাল আর গলায় চুমু খেতে লাগলো। এর পর আস্তে আস্তে চুমু খেতে খেতে নিচের দিকে নেমে আমার শক্ত হয়ে থাকা ধোনে চুমু খেতে লাগলো। দুই এক ঠোকর দিয়ে নিজের হাত দিয়ে আমার ধোন দরে নিজের মুখে নিয়ে চাটতে লাগলো। আমি উত্তেজনায় আহহহ আহহ করতে লাগলাম। ও একবার আমার ধোন নিজের মুখের ভেতর নিয়ে যাচ্ছে আবার বের করে আনছে। আবার আমার ধোনের মাথায় ধরে জিভ দিয়ে ধোনের ছিদ্রের ভেতরে চেটে দিচ্ছে। আহা সে কি এক অনুভুতি। এ রকম ব্লো জব আমি আগে কারো কাছ থেকে পাইনি।এর পর আমি আর সহ্য করতে না পেরে উঠে গিয়ে অচেনা জাফর কে আমার নিচে শুইয়ে পাগলের মত চুমু খেতে লাগলাম। দুই নগ্ন দেহ যেন একে অপরের সাথে একেবারে মিশে যেতে চাইছে। ইচ্ছেমত আমরা চুমাচুমি করতে লাগলাম। ওর নরম দুধ আমার বুকে এসে লেপটে যাচ্ছিল। আমি ওর গলা বুক চুমু খেতে খেতে নিচের দিকে নেমে সাদা ফর্সা দুধ আমার মুখের ভেতর নিয়ে নিলাম। আহা কি যে নরম দুধ। আমি জোরে জোরে কামড় দিতে লাগলাম আর চুষতে লাগলাম। আমার চুষার কারণে চু চু শব্দ হতে লাগলো। এর পর আরও নিচে নেমে ওর পেট নাভি আমার চুমুতে একাকার করে দিলাম। ও উত্তেজনায় আমার প্রতিটি ঠোঁটের স্পর্শে কেঁপে কেঁপে উঠছিল আর আহহ আহহ উহহ করতে লাগলো। আমি এর পর ওর গোলাপী চুল হীন ভোদায় মুখ দিলাম। এর পর ভোদার উপরে ক্লিটে আমার জিভ দিয়ে চাটতে লাগলাম। ও বেশ উত্তেজিত হয়ে গেলো আর বলল “.. উহহ…আহহহহহহহহহহ পাজল ভাই খেয়ে ফেলোন আমার ভোদা… আহহ…… “ ।
আমি আরও জোরে ওকে জিভ দিয়ে ফাঁক করতে লাগলাম এর পরে আঙ্গুল ঢুকিয়ে দিলাম ঐ ভিজে থাকা নরম ভোদায়। কিছুক্ষণ আঙ্গুল ফাঁক করলাম আর ও উত্তেজনায় নিজের কোমর উচু করে করে আমার কাজে সারা দিচ্ছিল। এর পর আমি কনডম বের করে আমার ধোনে পরতেই বল্ল পাজল ভাই কনডম দিয়ে করলে মজা পাওয়া যায় না এটা খুলে কনডম ছারা ডুকান প্লিস। কনডম খুলে আমি সোজা আমার শক্ত হয়ে যাওয়া ধোন ওর ভোদার মুখে নিয়ে পকাত করে ঢুকিয়ে দিলাম। অচেনা জাফর উহহ করে এক শব্দ করল। এর পর শুরু হল আমার চুদনের পালা। আমি আস্তে আস্তে আমার গতি বাড়ালাম। ও বলতে লাগলো জোরে… করেন উহহ … আহহহ… আই লাভ উ সু মাচ আহহহহ… উহহ… সসসস… এরকম আওয়াজ করতে লাগলো। ওর এরকম আওয়াজ শুনে আমি আর নিজেকী ধরে রাখতে পারলাম না। মাল প্রায় বের হয়ে যাবে যাবে অবস্থা। এর মধ্যে ও ওর নিজের মাল আমার ধোনের মাথায় ছেড়ে দিল। আমি বুঝলাম ওর গরম মালে আমার ধোন ভিজে গেছে। আমি আরও জোরে জোরে চুদতে লাগলাম আর ভোদা ভিজে যাওয়ায় থপ থপ করে শব্দ হচ্ছিল। অচেনা জাফর আহ অহ করতে করতে বল্ল আপনার গরম মাল সরাসরি আমার ভোদায় ঢালোন প্লিজ্জ… উহহ… এত দেরি কেন আমি আর পারছি না তারা তারি করুন আর না হলে ইউনিটের সবাই জেনে যাবে আমার চেঙ্গিং রুমে চুদাচুদি করছি, এই কথা শুনে আমি দিলাম এক ধাক্কা সোজা ঢুকে গেলো ওর ভোদার ভেতরে আর আমার সর্বশক্তি দিয়ে চুদতে লাগলাম। এক পর্যায়ে তীব্র উত্তেজনায় আমি আমার মাল চিড় চিড় করে অচেনা জাফরের চেনা ভোদার ভেতরে ঢুকিয়ে দিলাম। এরপর দুই জনে জড়াজড়ি করে চেঞ্চিং রুমে নগ্ন হয়ে শুয়ে থাকলাম কিছুক্ষণ।


bangla choti 2018 ভিবিন্ন ধরনের আকা বাঁকা জিনিস -Bangla Choti Golpo